মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

রাজস্ব সভা

 

ঝিনাইদহ জেলা ভূমি রাজস্ব সভার কার্যবিবরণী (সেপ্টেম্বর, ২০১৮)

 

সভাপতি              : সরোজ কুমার নাথ, জেলা প্রশাসক, ঝিনাইদহ।                             

সভার স্থান            : জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষ।

সভার তারিখ         : ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ খ্রিঃ, সময় : সকাল ১০.০০ টা।                      

উপস্থিত সদস্যবৃন্দ   : পরিশিষ্ট- ‘ক’

 

উপস্থিত সকলকে স্বাগত জানিয়ে সভার কাজ শুরু করা হয়। মাঠ পর্যায়ে রাজস্ব প্রশাসনের সকল কার্যক্রম জনবান্ধব করার উপর বিশেষ গুরুত্বারোপ করে আলোচ্যসূচি অনুযায়ী বিস্তারিত আলোচনা ও সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।  

 

(১) বিগত সভার কার্যবিবরণী অনুমোদন :

 

কোন আপত্তি/সংশোধনী প্রস্তাব উত্থাপিত না হওয়ায় আগস্ট, ২০১৮ মাসের সভার কার্যবিবরণী সর্বসম্মতিক্রমে অনুমোদিত হয়।

 

(২) বিগত সভার সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন অগ্রগতি :

 

২৬ আগস্ট, ২০১৮ খ্রিঃ তারিখে অনুষ্ঠিত ভূমি রাজস্ব সভাসিদ্ধান্তসমূহ বাস্তবায়নের অগ্রগতির বিষয়ে আলোচনা করা হয়। সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ সচেষ্ট আছেন মর্মে সভায় অবহিত করা হয়।

 

(৩) সংস্থাপন বিষয়াদি :

 

(ক) শূন্য পদ পূরণের অগ্রগতি :

 

রাজস্ব প্রশাসনের শূন্য পদের বিবরণ (এসএ ও এলএ শাখা, উপজেলা ও ইউনিয়ন ভূমি অফিস) :

পদের নাম

পদের বেতন গ্রেড

মঞ্জুরিকৃত পদ

কর্মরত পদ

শূন্য পদ

মন্তব্য

উপ-সহকারী প্রকৌশলী

১০

০১

০১

-

-

কানুনগো

১০

০৮

০১

০৭

-

ড্রাফট‌্সম্যান

১৫

০১

০১

-

-

সার্ভেয়ার

১৪

০৮

০৭

০১

-

ইউ.ভূমি সহ. কর্মকর্তা

১৬

৭০

৫৩

১৭

অর্থ মন্ত্রণালয়ের স্মারক নং- ০৭.০০.০০০০.১৬১.৩১.০২৮.১২ (অংশ)- ১২৪   তারিখ : ৩০.০৫. ২০১৩ খ্রিঃ পত্রে নিয়োগ ও পদোন্নতি স্থগিত রয়েছে।

ইউ.ভূমি উপ-সহ. কর্মকর্তা

১৭

৭০

৫৪

১৬

ট্রেসার

১৬

০২

০১

০১

ভূমি মন্ত্রণালয় হতে নিয়োগ দেওয়া হয়

চেইনম্যান

২০

১৬

০১

১৫

প্রসেস সার্ভার

১৯

১২

১০

০২

পদোন্নতিযোগ্য পদ

অফিস সহায়ক

২০

১৫৫

১২৯

২৬

-

নিরাপত্তা প্রহরী

২০

১৪

১৩

০১

-

পরিচ্ছন্নতা কর্মী

২০

০৬

০৪

০২

-

                        মোট

-

৩৬৩

২৭৮

৮৫

 

 

রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর বলেন, পদগুলি শূন্য থাকায় রাজস্ব প্রশাসনের কাজ-কর্মে অত্যন্ত অসুবিধা হচ্ছে। ২০ তম গ্রেডের শূন্য পদগুলো পূরণের লক্ষ্যে আবেদন পত্র গ্রহণ করা হয়েছে এবং নিয়োগের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। ১৬ তম গ্রেডের শূন্য পদগুলো পূরণের লক্ষ্যে রাজস্ব শাখার স্মারক নং-০৫.৪৪.৪৪০০.০০৮.২৮.০০২.১৬- ৩০৪ তারিখ : ০৫.০৩.২০১৮ খ্রিঃ মাধ্যমে ভূমি মন্ত্রণালয়ে অনুমতি চাওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়।

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

২০ তম গ্রেডে নিয়োগের কার্যক্রম দ্রুত সম্পন্ন করতে হবে।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব), ঝিনাইদহ।

 

(খ) শৃঙ্খলা/বিভাগীয় মামলা নিষ্পত্তি :

 

রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর বলেন রাজস্ব প্রশাসনে কর্মরত ০৩ জন ইউনিয়ন ভূমি সহকারী/উপ-সহকারী কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মোট ০৪ টি বিভাগীয় মামলা চলমান আছে মর্মে সভাকে অবহিত করা হয়। এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়।

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

বিভাগীয় মামলাগুলো নিয়ম অনুযায়ী নিষ্পত্তির প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব)

চলমান পৃষ্ঠা- ০২

-০২-

 

() অনিষ্পন্ন (pending) বিষয়াদি :

বিষয়

বিগত মাসের অনিষ্পন্ন দরখাস্ত

আলোচ্য মাসে প্রাপ্ত দরখাস্তের সংখ্যা

মোট দরখাস্তের সংখ্যা

আলোচ্য মাসে নিষ্পত্তির সংখ্যা

অনিষ্পন্ন

মন্তব্য

টাইম স্কেল

-

-

-

-

-

-

স্থায়ীকরণ

০৯

-

০৯

-

০৯

-

 

রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর বলেন চাকুরী স্থায়ীকরণের জন্য ০৯ টি আবেদনপত্র অনিষ্পন্ন আছে যা নিষ্পত্তির কার্যক্রম চলমান।

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

অনিষ্পন্ন আবেদন পত্রগুলো নিয়ম অনুযায়ী নিষ্পত্তি করতে হবে।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব), ঝিনাইদহ।

 

() বাজেট প্রণয়ন ও ব্যয় পর্যালোচনা/নিয়ন্ত্রণ :

রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর বলেন সম্ভাব্য বাজেট প্রণয়ন করে ভূমি সংস্কার বোর্ডে প্রেরণ করা হয়। কর্মকর্তা/কর্মচারীদের বেতন-ভাতা, ভ্রমণ ব্যয়, শ্রান্তি-বিনোদন ভাতা, আনুষঙ্গিক খরচ, টেলিফোন বিল ও অন্যান্য খাত বাবদ যে বরাদ্দ ভূমি সংস্কার বোর্ড থেকে পাওয়া যায় তা নিয়ম অনুযায়ী ব্যয় করা হচ্ছে এবং বিল-ভাউচার সংরক্ষণ করা হচ্ছে।

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

ক) বরাদ্দকৃত অর্থ নিয়ম অনুযায়ী ব্যয় করতে হবে।

খ) অর্থ খরচের বিল-ভাউচার যথানিয়মে সংরক্ষণ করতে হবে।

গ) প্রাপ্ত বরাদ্দ ও ব্যয় মাসিক রাজস্ব সভায় আলোচনা করতে হবে।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব),

রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর, ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ, ঝিনাইদহ।

 

(ঙ) জেলা মহাফেজখানা ব্যবস্থাপনা :

জেলা রেকর্ড রুম হতে সিএস, এসএ এবং আরএস খতিয়ানের জাবেদা নকল নিয়ম অনুযায়ী সরবরাহ করা হচ্ছে মর্মে সভাকে অবহিত করা হয়। আগস্ট, ২০১৮ মাসে নকল প্রদানের চিত্র নিম্নরূপ :

 

ক্রমিক নং

পূর্ববর্তী  মাসের জের

আলোচ্য মাসে প্রাপ্ত

মোট আবদনের সংখ্যা

নিষ্পত্তির সংখ্যা

অনিষ্পন্ন সংখ্যা

  কোর্ট ফি ও  ফোলিও বাবদ আদায়

মন্তব্য

০১

৩৩

২৪৬৫

২৪৯৮

২৪৬৩ 

৩৫

৭০,৮৫৬/-

 

 

নকলের আবেদনের সাথে প্রাপ্ত কোর্ট ফি’র হিসাব যথাযথভাবে সংরক্ষণ করার জন্য ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, রেকর্ড রুম শাখার দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়। ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, রেকর্ডরুম শাখা বলেন কোর্ট ফি’র হিসাব যথাযথভাবে সংরক্ষণ করা হচ্ছে এবং জমির মালকানা সংক্রান্ত রেকর্ড (RoR) জেলা ওয়েব পোর্টালে প্রকাশ করা হচ্ছে।

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

ক) নকল প্রদানের চলমান ধারা অব্যাহত রাখাসহ কেউ যেন

    অহেতুক ভোগান্তির শিকার না হয় তা নিশ্চিত করতে হবে।

ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, রেকর্ড রুম শাখা।

খ) জেলা ওয়েব পোর্টালে ধারাবাহিকভাবে জমির মালকানা

    সংক্রান্ত রেকর্ড (RoR) প্রকাশ করতে হবে।

ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, রেকর্ড রুম শাখা।

 

চ) ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট নির্ধারিত রিপোর্ট/রিটার্ন প্রেরণ :

নামজারি, ভূমি উন্নয়ন কর, রেন্ট সার্টিফিকেট, হাট-বাজার, জলমহাল, অর্পিত সম্পত্তি, ভূমি হুকুম দখল, খাস জমি, দেওয়ানি মামলা ও সেটেলমেন্ট সংক্রান্ত রিপোর্ট/রিটার্ন যথাসময়ে সংশ্লিষ্ট বিভাগ/দপ্তরে প্রেরণ করা হচ্ছে মর্মে সভায় অবহিত করা হয় ।

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

রিপোর্ট/রিটার্ন প্রস্তুতপূর্বক যথাসময়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বরাবর প্রেরণ নিশ্চিত করতে হবে।

রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর, ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, আরএম শাখা ও সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ

 

(৪) ভূমি অফিসসমূহের কর্মসম্পাদন/তৎপরতা :

(ক) উপজেলা পর্যায়ে মাসিক সভা অনুষ্ঠান :

নির্ধারিত তারিখে উপজেলা পর্যায়ে সভা করা হয় মর্মে জানানো হয়। সভায় আলোচ্য সূচী অনুযায়ী বিস্তারিত আলোচনা এবং সিদ্ধান্ত গ্রহণসহ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়।

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

সভার সিদ্ধান্তগুলো কার্যবিবরণীতে সুস্পষ্টভাবে উল্লেখসহ বাস্তবায়ন নিশ্চিত করতে হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ

চলমান পৃষ্ঠা- ০৩

 

-০৩-

 

(খ) মাঠ পর্যায়ের অফিসসমূহ হতে নির্ধারিত রিপোর্ট/ রিটার্ন প্রাপ্তি :

 

রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর বলেন আগস্ট, ২০১৮ মাসের রিপোর্ট/রিটার্ণ সকল উপজেলা হতে নির্ধারিত সময়ে। এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়।

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

প্রতি মাসের ২য় কর্ম দিবসে রিপোর্ট/রিটার্ন প্রেরণ নিশ্চিত করতে হবে।

সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ

 

(গ) ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা কর্তৃক উপজেলা ও ইউনিয়ন ভূমি অফিসসমূহ পরিদর্শন :

 

আগস্ট, ২০১৮ মাসে কর্মকর্তাগণের ভূমি অফিস পরিদর্শন/দর্শন সংক্রান্ত তথ্য নিম্নরূপ :

 

ক্রমিক নং

কর্মকর্তার নাম ও পদবী

পরিদর্শন

দর্শন

মোট

মন্তব্য

অফিসের নাম

প্রমাপ

সম্পাদন

০১

জেলা প্রশাসক

উপ.ভূ.অ.

প্রমাপ অর্জিত হয়েছে

ইউ.ভূ.অ.

-

০২

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব)

উপ.ভূ.অ.

ইউ.ভূ.অ.

-

 

                        সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

প্রমাপ অনুযায়ী ভূমি অফিসসমূহ পরিদর্শন করতে হবে।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব), ঝিনাইদহ।

 

(ঘ) উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনার ভূমি কর্তৃক পরিদর্শন :

 

আগস্ট, ২০১৮ মাসে কর্মকর্তাদের ভূমি অফিস পরিদর্শন/দর্শন সংক্রান্ত তথ্য নিম্নরূপ : 

 

ক্রমিক নং

কর্মকর্তার পদবী ও কর্মস্থল

পরিদর্শন

দর্শন

মোট

প্রমাপ অর্জিত হয়েছে কি-না

মন্তব্য

 

 

প্রমাপ

সম্পাদন

০১

উপজেলা নির্বাহী অফিসার, সদর

হ্যাঁ

-

০২

উপজেলা নির্বাহী অফিসার, শৈলকুপা

হ্যাঁ

-

০৩

উপজেলা নির্বাহী অফিসার, হরিণাকুন্ডু

হ্যাঁ

-

০৪

উপজেলা নির্বাহী অফিসার, কালীগঞ্জ

হ্যাঁ

-

০৫

উপজেলা নির্বাহী অফিসার, কোটচাঁদপুর

হ্যাঁ

-

০৬

উপজেলা নির্বাহী অফিসার, মহেশপুর

হ্যাঁ

-

০৭

সহকারী কমিশনার (ভূমি), সদর

 হ্যাঁ

-

০৮

সহকারী কমিশনার (ভূমি), শৈলকুপা

-

-

-

-

পদ শুন্য

০৯

সহকারী কমিশনার (ভূমি), হরিণাকুন্ডু

-

-

-

-

পদ শুন্য

১০

সহকারী কমিশনার (ভূমি), কালীগঞ্জ

হ্যাঁ

-

১১

সহকারী কমিশনার (ভূমি), কোটচাঁদপুর

-

-

-

-

মাতৃত্ব ছুটিতে

 ১২

সহকারী কমিশনার (ভূমি), মহেশপুর

হ্যাঁ

-

 

ভূমি রাজস্ব ব্যবস্থাপনা সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য পরিদর্শন ও পর্যবেক্ষণ একান্ত অপরিহার্য বলে সভায় উল্লেখ করা হয়। প্রমাপ অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ কর্তৃক উপজেলা/ইউনিয়ন ভূমি অফিস পরিদর্শন ও প্রতিবেদন প্রেরণের বিষয়ে গুরুত্বারোপ করা হয়। পরিদর্শনকালে সবকিছু পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে যাঁচাই করার জন্য পরামর্শ প্রদান করা হয়। পরিদর্শনকালে ত্রুটি-বিচ্যুতি পরিলক্ষিত হলে পরবর্তী পরিদর্শনের সময় সেই ত্রুটি-বিচ্যুতি সংশোধিত হয়েছে কিনা তা দেখতে হবে।

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

ক) প্রমাপ অনুযায়ী ভূমি অফিসসমূহ পরিদর্শন পূর্বক মন্ত্রণালয়ের নির্দেশিত ছকে

     প্রতিবেদন প্রেরণ করতে হবে।

খ) পরিদর্শনকালে সবকিছু পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে দেখতে হবে।

গ) পরিদর্শনকালে পূর্ববর্তী পরিদর্শনে উল্লিখিত ত্রুটি বিচ্যুতি সংশোধন করা হয়েছে

    কিনা তা যাচাই করতে হবে।

রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ

 

 

 

চলমান পৃষ্ঠা- ০৪

 

-০৪-

 

(ঙ) অডিট আপত্তি নিষ্পত্তির অগ্রগতি পর্যালোচনা (আগস্ট, ২০১৮) :

 

রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর বলেন রাজস্ব (এসএ) শাখা এবং উপজেলা ভূমি অফিসসমূহে নিম্নলিখিত অডিট আপত্তি অনিষ্পন্ন আছে।

 

ক্রমিক নং

অফিসের নাম

অডিট

প্রতিবেদনের সংখ্যা

 আগস্ট/১৮ মাসে নিষ্পত্তির জন্য প্রেরিত অডিট প্রতিবেদনের সংখ্যা

অবশিষ্ট অডিট

প্রতিবেদনের সংখ্যা

মন্তব্য

০১

রাজস্ব (এসএ) শাখা

০২

-

০২

 

০২

উপজেলা ভূমি অফিস

সদর, ঝিনাইদহ।

০৪

-

০৪

০৩

উপজেলা ভূমি অফিস

শৈলকুপা, ঝিনাইদহ।

০২

-

০২

০৪

উপজেলা ভূমি অফিস

হরিণাকুন্ডু, ঝিনাইদহ।

০১

-

০১

০৫

উপজেলা ভূমি অফিস

কালীগঞ্জ, ঝিনাইদহ।

০১

-

০১

০৬

উপজেলা ভূমি অফিস

কোটচাঁদপুর, ঝিনাইদহ।

০৪

-

০৪

০৭

উপজেলা ভূমি অফিস

মহেশপুর, ঝিনাইদহ।

০৩

-

০৩

 

                   মোট

১৭

-

১৭

 

আপত্তিকৃত টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দিয়ে অনিষ্পন্ন আপত্তিসমূহ দ্রুত নিষ্পত্তির ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে মর্মে আলোচনা করা হয়।

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

ক) আপত্তিকৃত অর্থ সরকারি কোষাগারে জমা দিয়ে প্রমাণকসহ বক্ষ্যমাণ

     জবাব প্রেরণ করতে হবে।

খ) কোন কর্মচারীর ক্ষেত্রে ২০০/- (দুইশত) টাকা পর্যন্ত আপত্তি উত্থাপিত

     হলে তাৎক্ষণিকভাবে আপত্তি নিষ্পত্তি প্রচেষ্টা গ্রহণ করতে হবে।

রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর এবং সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ, ঝিনাইদহ।

সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ এবং হিসাব তত্ত্বাবধায়ক (রাজস্ব), ঝিনাইদহ।

 

(৫) সার্বিক ভূমি ব্যবস্থাপনা :

 

(ক) নামজারির অগ্রগতি পর্যালোচনা (আগস্ট, ২০১৮) :

 

নামজারি মামলা নিষ্পত্তি সংক্রান্তে সভায় আলোচনা করা হয়। আগস্ট, ২০১৮ মাসে নামজারি মামলা নিষ্পত্তির তথ্য নিম্নরূপ :  

 

উপজেলার নাম

মোট মামলার সংখ্যা

আলোচ্য মাসে নিষ্পন্ন মামলার সংখ্যা

অনিষ্পন্ন  মামলার সংখ্যা

অনিষ্পন্ন

(৩০ দিনের ঊর্ধ্বে)

প্রথম ভাগ

দ্বিতীয় ভাগ

প্রথম ভাগ

দ্বিতীয় ভাগ

প্রথম ভাগ

দ্বিতীয় ভাগ

প্রথম ভাগ

দ্বিতীয় ভাগ

সদর

৮৭৩

১৮

৪৪০

-

৪৩৩

১৮

-

-

শৈলকুপা

৩০৭

-

২৭২

-

৩৫

-

-

-

হরিণাকুন্ডু

২৯৬

১৬

১০০

১৬

১৯৬

-

-

-

কালীগঞ্জ

২৩০

-

১২৭

-

১০৩

-

-

-

কোটচাঁদপুর

২৭৪

২০

১১৪

১০

১৬০

১০

-

-

মহেশপুর

১৭৪

৫৩

১০০

৫০

৭৪

-

-

মোট

২১৫৪

১০৭

১১৫৩

৭৬

১০০১

৩১

-

-

 

প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী বিবেচ্য মাসে ০৬ টি উপজেলায় ১০৩২ টি নামজারি মামলা অনিষ্পন্ন রয়েছে। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে মামলা নিষ্পত্তির উপর গুরুত্বারোপ করা হয়। মামলা নিষ্পত্তির পর সংশ্লিষ্ট রেকর্ড/রেজিস্টার দ্রুত সংশোধন করতে হবে মর্মে আলোচনা করা হয়। যথাসময়ে রেজিস্টার সংশোধন করা হচ্ছে এবং নামজারির তথ্য পাওয়া যাচ্ছে মর্মে সভায় জানানো হয়।

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

ক) নির্ধারিত সময়ের মধ্যে অনিষ্পন্ন মামলাসমূহ নিষ্পত্তিসহ সংশ্লিষ্ট

    রেকর্ড/রেজিস্টার দ্রুত সংশোধন করতে হবে।

সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ

খ) ই-নামজারি/নামজারির প্রতিবেদন নির্ধারিত ছকে প্রতিমাসে

    প্রেরণ করতে হবে।

সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ

গ) নামজারির পর নামজারির খতিয়ানের কপি মৌজাভিত্তিক জেলা রেকর্ড রুমে প্রেরণ করতে হবে।

সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ

চলমান পৃষ্ঠা- ০৫

-০৫-

 

(খ) ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ভূমি উন্নয়ন করের দাবী নির্ধারণ ও আদায় পর্যালোচনা (২০১৭-১৮) :

 

২০১৭-১৮ অর্থবছরে আগস্ট, ২০১৮ মাস পর্যন্ত উপজেলাভিত্তিক ভূমি উন্নয়ন কর আদায়ের চিত্র নিম্নরূপ।

উপজেলার নাম

সাধারণ/

সংস্থা

২০১৮-১৯ অর্থবছরের দাবী

   ২০১৮-১৯ অর্থবছরের আদায়

আদায়ের হার (%)

 

বকেয়া

হাল

বকেয়া

হাল

বকেয়া

হাল

সদর

সাধারণ

দাবী নির্ধারণ প্রক্রিয়াধীন

 

দাবী নির্ধারণ প্রক্রিয়াধীন

-

২২,৬২,৮৪৪/-

-

-

সংস্থা

-

৪৬,২৭৬/-

-

-

মোট

-

২৩,০৯,১২০/-

-

-

শৈলকুপা

সাধারণ

-

৮,২৪,২৪০/-

-

-

সংস্থা

-

-

-

-

মোট

-

৮,২৪,২৪০/-

-

-

হরিণাকুন্ডু

সাধারণ

-

৬,১৮,৬৪৩/-

-

-

সংস্থা

-

৬২,২০৬/-

-

-

মোট

-

৬,৮০,৮৪৯/-

-

-

কালীগঞ্জ

সাধারণ

-

১৩,৮০,৫৬২/-

          -

-

সংস্থা

-

২,৩৩০/-

-

-

মোট

-

১৩,৮২,৮৯২/-

-

-

কোটচাঁদপুর

সাধারণ

-

১২,৪৭,০১১/-

-

-

সংস্থা

-

-

-

-

মোট

-

১২,৪৭,০১১/-

-

-

মহেশপুর

সাধারণ

-

২০,৩৯,৬৫২/-

-

-

সংস্থা

-

-

-

-

মোট

-

২০,৩৯,৬৫২/-

-

-

জেলার মোট

সাধারণ

-

৮৩,৭২,৯৫২/-

-

-

সংস্থা

-

১,১০,৮১২/-

-

-

মোট

-

৮৪,৮৩,৭৬৪/-

-

-

 

ভূমি উন্নয়ন করের দাবী ও আদায় সংক্রান্ত উপরিউক্ত তথ্যের সঠিকতা সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ যাচাই করবেন। সংস্থার প্রধানদেরকে ভূমি উন্নয়ন কর প্রদানের অনুরোধসহ পত্র প্রেরণের জন্য সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণকে পরামর্শ প্রদান করা হয়। এখন হতে আদায় কার্যক্রম জোরদার করাসহ সংস্থার নিকট দীর্ঘদিনের বকেয়া পাওনা আদায়ের ব্যাপারে বিশেষ গুরুত্বারোপ করা হয়।

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

ক) সংস্থার দাবীর তথ্যসহ সংশ্লিষ্ট সংস্থার প্রধান কার্যালয়ে প্রয়োজনীয় অর্থ

     বরাদ্দ প্রদানের লক্ষ্যে পত্র প্রেরণ করতে হবে।

সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ

খ) ভূমি উন্নয়ন করের তথ্য অনলাইনে আপডেট করতে হবে এবং হার্ডকপি    

    প্রতি মাসের ১ম সপ্তাহে ভূমি সংস্কার বোর্ডে প্রেরণ করতে হবে।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব)

গ) মাঠ পর্যায়ে ভূমি উন্নয়ন করের দাবি নির্ধারণ ও আদায়ে সৃষ্ট জটিলতা

    নিরসনে সংস্থার সাথে নিয়মিত সমন্বয় সভা করতে হবে।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব), সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ, সংশ্লিষ্ট সংস্থা

ঘ) ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তাদের দিয়ে মাইক্রোসফট এ্যাক্সেলে মালিকের  

    নাম, ঠিকানা, জমির পরিমাণ, ভূমি উন্নয়ন করের দাবীর তথ্য লিপিবদ্ধ করতে হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসারগণ,

সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ

 

(৬) বিভিন্ন প্রকার সরকারি ভূমি ব্যবস্থাপনা ও পরিবীক্ষণ :

 

(ক) রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর বলেন হাট-বাজারের পেরিফেরি নির্ধারণের তথ্য নিম্নরূপ। এ বিষয়ে আলোচনা করে পেরিফেরি নির্ধারণে নিম্নরূপ লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। হাট-বাজারের জমি একসনা বন্দোবস্ত প্রদানসহ অবৈধ দখলদার উচ্ছেদের ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়।

 

ক্রমিক নং

উপজেলার নাম

মোট হাটের সংখ্যা

পেরিফেরি নির্ধারিত হয়েছে এমন হাটের সংখ্যা

 অবশিষ্ট হাটের সংখ্যা

    অক্টোবর, ২০১৮ মাসের লক্ষ্যমাত্রা

০১

ঝিনাইদহ সদর

৪৩

১৮

২৫

০২

০২

শৈলকুপা

২৬

১৮

০৮

০১

০৩

হরিণাকুন্ডু

২৪

১০

১৪

০২

০৪

কালীগঞ্জ

৩১

১৩

১৮

০২

০৫

কোটচাঁদপুর

১৯

০৫

১৪

০২

০৬

মহেশপুর

৪৮

১৪

৩৪

০৩

 

মোট

১৯১

৭৮

১১৩

১২

 

চলমান পৃষ্ঠা- ০৬

-০৬-

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

ক) লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী অবশিষ্ট পেরিফেরি কেস নথি জরুরিভিত্তিতে প্রস্তুতপূর্বক

    প্রেরণসহ বন্দোবস্তযোগ্য জমি নিয়ম অনুযায়ী একসনা বন্দোবস্ত প্রদান করতে হবে।

খ) হাট-বাজারের জমি হতে অবৈধ দখলদার উচ্ছেদ করতে হবে।

গ) যে সকল হাট-বাজারের ইজারা চলমান রয়েছে কিন্তু সায়রাতভুক্ত হয়নি এরূপ হাট-

    বাজারের ক্ষেত্রে সায়রাতভুক্তির প্রস্তাব প্রেরণ করতে হবে।

ঘ) কোন হাট-বাজারে পেরিফেরিযোগ্য সরকারি জমি না থাকলে অধিগ্রহণের প্রস্তাব   

    প্রেরণ করতে হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও

সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ

 

(খ) হাট-বাজার ইজারার অগ্রগতি পর্যালোচনা (আগস্ট, ২০১৮) :

 

রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর বলেন হাট-বাজারের তথ্য নিম্নরূপ। যথাসময়ে হাট-বাজার ইজারা প্রদান ও ইজারার পর সায়রাত রেজিস্টার হালনাগাদের বিষয়ে আলোচনা করা হয়। সায়রাত রেজিস্টার হালনাগাদ করা হচ্ছে মর্মে জানানো হয়।

 

ক্রমিক নং

উপজেলার নাম

মোট হাট-বাজারের সংখ্যা

ইজারাকৃত হাট-বাজারের সংখ্যা

ইজারালব্ধ টাকার

পরিমাণ

ইজারা হয়নি এমন

হাট-বাজারের সংখ্যা

খাস আদায়কৃত হাট-বাজারের সংখ্যা

০১

ঝিনাইদহ সদর

৪৩ টি

৩৭ টি

২,২২,৭৩,১৫৪/-

০৬ টি

০৬ টি

০২

শৈলকুপা

২৬ টি

২৪ টি

১,৮৪,২৩,৪১৬/-

০২ টি

০২ টি

০৩

হরিণাকুন্ডু

২৪ টি

১৮ টি

৩৮,৩২,৭৪১/-

০৬ টি

০৫ টি

০৪

কালীগঞ্জ

৩১ টি

৩০ টি

৯৫,৫১,৭৯০/-

০১ টি

০১ টি

০৫

কোটচাঁদপুর

১৯ টি

১৮ টি

৩৬,৪৭,৫৬৬/-

০১ টি

০১ টি

০৬

মহেশপুর

৪৮ টি

৪৩ টি

৭৮,১৩,০৯৮/-

০৫ টি

০৫ টি

 

মোট

১৯১ টি

১৭০ টি

৬,৫৬,৪১,৭৬৫/-

২১ টি

২০ টি

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

নীতিমালা অনুযায়ী হাট-বাজার ইজারা প্রদান করে দ্রুত সায়রাত রেজিস্টার হালনাগাদ করতে হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসারগণ

 

(গ) জলমহাল ইজারার অগ্রগতি পর্যালোচনা (আগস্ট, ২০১৮ :

 

জলমহাল ইজারা সংক্রান্ত নিম্নরূপ তথ্য পেশ করা হয় :   

ক্রমিক নং

উপজেলার নাম

২০ একর পর্যন্ত আয়তন বিশিষ্ট জলমহালের সংখ্যা

২০ একরের ঊর্ধ্বে

আয়তন বিশিষ্ট জলমহালের সংখ্যা

১৪২৫ সালের ইজারার তথ্য

বিগত ০২ বছরের ইজারার সংখ্যা

২০ একর পর্যন্ত

২০ একরের ঊর্ধ্বে

২০ একর পর্যন্ত

২০ একরের ঊর্ধ্বে

০১

সদর

২০

০৩

০৪

-

১০

-

০২

শৈলকুপা

১০

০১

০২

-

০৪

০১

০৩

হরিণাকুন্ডু

০৩

০৪

০১

-

০১

০২

০৪

কালীগঞ্জ

০৯

০৬

-

০২

০৪

০১

০৫

কোটচাঁদপুর

০২

০৫

-

০১

০১

০১

০৬

মহেশপুর

১০

১৮

-

০২

০৭

০৩

 

মোট

৫৪

৩৭

০৭

০৫

২৭

০৮

 

মামলায় জড়িত থাকায় কয়েকটি জলমহাল ইজারা প্রদান করা সম্ভব হয় না মর্মে সভায় আলোচনা করা হয়।

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

ক) নীতিমালা অনুযায়ী যথাসময়ে জলমহাল ইজারা প্রদান করতে হবে।

খ) জলমহালের মামলাগুলো নিষ্পত্তির লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ

    করতে হবে।

গ) প্রতিমাসে কমপক্ষে ০১ টি জলমহাল পরিদর্শন করতে হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসারগণ, সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ, রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, আরএম শাখা এবং বিজ্ঞ সরকারি কৌঁসুলি, ঝিনাইদহ।

উপজেলা নির্বাহী অফিসারগণ।

 

চলমান পৃষ্ঠা- ০৭

-০৭-

 

(ঘ) ইজারাযোগ্য অর্পিত সম্পত্তির ইজারা নবায়ন সংক্রান্ত অগ্রগতি পর্যালোচনা (আগস্ট, ২০১৮) :

 

রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর বলেন আগস্ট, ২০১৮ মাস পর্যন্ত এ জেলার অর্পিত সম্পত্তির ইজারার টাকা আদায়ের তথ্য নিম্নরূপ :

উপজেলার নাম

সেন্সাস তালিকাভুক্ত জমির পরিমাণ

ইজারাকৃত জমির পরিমাণ

মোট দাবির পরিমাণ

বর্তমান মাসে আদায়কৃত টাকার পরিমাণ

বর্তমান অর্থ বছরে আদায়কৃত টাকার পরিমাণ

আদায়ের হার

বকেয়া

হাল

বকেয়া

হাল

বকেয়া

হাল

 

সদর

২৮৭৫.০৫

৯৭৩.৯৭

১,৩৭,৫১৫

২,৩৭,৬১৫

১,২০০

৫,৮০০

২,০০০

৮,০৫৫

২.৬৮%

শৈলকুপা

৩৯৯৫.৩৫

১৩৪৪.২১

৬,৫২,২৮৫

৬,৭২,১০৫

৮,৮৪০

৯,৪৮০

২০,৭১৫

১৭,৮৩০

২.৯১%

হরিণাকুন্ডু

১৩৯২.০৭

৬০৮.৯৬

১,২৬,৪৯৫

২৮,৬৬৬

-

-

-

-

-

কালীগঞ্জ

১৭৫৬.১৩

৩৩৫.৪২

৮৫,৩৯০

৫৬,৪২০

৮৬৫

৩০০

৮৬৫

১,০৪৫

১.৩৫%

কোটচাঁদপুর

১৮৭০.০০

৩৫৩.৬০

১,৭০,০০০

৮০,০০০

৮১৫

৭১০

১,২১৫

২,৬৬৮

১.৫৫%

মহেশপুর

৪০৮০.৬২

৩৫২.৬৭

৩,৯০,১০৪

২,৩২,৫০০

-

১,৭২৫

৬৪৫

৫,০২৫

০.৯১%

মোট

১৫৯৬৯.২২

৪০৩০.৫১

১৫,৬১,৭৮৯

১৩,০৭,৩০৬

১১,৭২০

১৮,০১৫

২৫,৪৪০

৩৪,৬২৩

২.০৯%

 

অর্পিত সম্পত্তি সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার স্বার্থে ইজারাকৃত সম্পত্তির ইজারা গ্রহীতাদের থেকে বকেয়া আদায়ের বিষয়ে সভায় বিস্তারিত আলোচনা হয়। অর্পিত সম্পত্তি যাতে কোনভাবে বেদখল না হয় সে বিষয়ে সতর্ক থাকার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয় এবং অর্পিত সম্পত্তির ডাটাবেজ তৈরির বিষয়ে গুরুত্বারোপ করা হয়।

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

অর্পিত সম্পত্তির ইজারার অর্থ শতভাগ আদায়ের লক্ষ্যে বার বার ইজারা গ্রহীতাদেরকে নোটিশ প্রদান করতে হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসারগণ, সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ

 

(ঙ) অধিগ্রহণকৃত অব্যবহৃত ভূমি সংক্রান্ত পর্যালোচনা (আগস্ট, ২০১৮) :

ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা বলেন অধিগ্রহণকৃত অব্যবহৃত ভূমির তথ্য নিম্নরূপ :

ক্রমিক নং

উপজেলার নাম

অধিগ্রহণকৃত ভূমির

পরিমাণ (একরে)

ব্যবহৃত ভূমির

পরিমাণ (একরে)

অব্যবহৃত ভূমির পরিমাণ (একরে)

০১

সদর

১,৪২৩.৯৬

১,৩৭৮.৩৫

৪৫.৬১

০২

শৈলকুপা

৪,৬৯৩.৬৮

৪,৬৬০.৭৪

৩২.৯৪

০৩

হরিণাকুণ্ডু

২,২৯৯.৪৭

২,২৯৯.৪৭

-

০৪

কালীগঞ্জ

৩৪৮.০৫

৩৪৫.২৬

২.৭৯

০৫

কোটচাঁদপুর

৬৯৭.২৩

৬৯৭.২৩

-

০৬

মহেশপুর

১,৭০৬.১০

১,৬৮২.৫৯

২৩.৫১

 

মোট

১১,১৬৮.৪৯

১১,০৬৩.৬৪

১০৪.৮৫

 

অধিগ্রহণকৃত অব্যবহৃত জমির সঠিক ব্যবহার প্রসঙ্গে আলোচনা করা হয়। অব্যবহৃত জমিতে সরেজমিন গিয়ে জমির বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে প্রতিবেদন দাখিলসহ জমির সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিতকরণের বিষয়ে গুরুত্বারোপ করা হয়। আগস্ট/২০১৮ মাসে অধিগ্রহণকৃত অব্যবহৃত জমির বর্তমান অবস্থার উপর একটি প্রতিবেদন ১৫ দিনের মধ্যে প্রেরণের জন্য সহকারী কশিনার (ভূমি)গণকে নির্দেশনা দেওয়া হয়। সকল উপজেলা হতে প্রতিবেদন পাওয়া গেছে।

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

অধিগ্রহণকৃত অব্যবহৃত জমি সরেজমিন পরিদর্শন করে জমির বর্তমান অবস্থার উপর একটি প্রতিবেদন ১৫ দিনের মধ্যে দাখিল করতে হবে। প্রতিবেদন অনুযায়ী অব্যবহৃত জমি রিজিউম কার্যক্রম গ্রহণ করতে হবে।

ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা, সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ

 

৭) ভূমি অধিগ্রহণ সংক্রান্ত :

(ক) ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা সভাকে বলেন মামলার তথ্য নিম্নরূপ (আগস্ট, ২০১৮) :

ভূমি অধিগ্রহণ আইন

ভূমি অধিগ্রহণ আইনের আওতায় এ পর্যন্ত মোট রুজুকৃত মামলার সংখ্যা

এ পর্যন্ত নিষ্পত্তিকৃত মোট মামলার সংখ্যা

অনিষ্পন্ন মামলার সংখ্যা

অনিষ্পন্নের কারণ

প্রকাশিত গেজেটের সংখ্যা

গেজেট প্রকাশের অপেক্ষায় আছে এমন সংখ্যা

ভূমি অধিগ্রহণ আইন, ১৯৪৮

১৭১০

১১১৬

৫৯৪

বেশির ভাগই বহু পুরাতন মামলা এবং ক্ষতিপূরণ গ্রহণ করেনি।

৫৮

১৩৩

ভূমি অধিগ্রহণ আইন, ১৯৮২

২৬৬

১৬৯

১০৩

কার্যক্রম চলমান

৮১

১১

ভূমি অধিগ্রহণ আইন, ২০১৭

০৬

-

০৬

কার্যক্রম চলমান

-

-

চলমান পৃষ্ঠা- ০৮

-০৮-

 

১৯৪৮, ১৯৮২ এবং ২০১৭ সালের আইন অনুযায়ী অধিগ্রহণ মামলা সঠিকভাবে নিষ্পত্তির বিষয়ে গুরুত্বারোপ করা হয়। মামলা নিষ্পত্তি অন্তে গেজেট প্রকাশের পর জমির নামজারি করে ভূমি উন্নয়ন কর আদায়ের জন্য সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়।

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

ক) অনিষ্পন্ন মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

খ) অধিগ্রহণকৃত জমির গেজেট প্রকাশের পর নামজারি করে ভূমি

    উন্নয়ন কর আদায় করতে হবে।

ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা,

সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ

 

(খ) ক্ষতিপূরণ প্রদানের অগ্রগতি (আগস্ট, ২০১৮) :

 

ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা বলেন আগস্ট, ২০১৮ মাসে ৫১,১৫,১০৮/১৫ টাকা ক্ষতিপূরণ প্রদান করা হয়েছে। এ বিষয়ে আলোচনা করা হয়।

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

ক্ষতিপূরণ প্রদানের ক্ষেত্রে কেউ যাতে ভোগান্তির শিকার না হয় তা নিশ্চিত করতে হবে।

ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা,  ঝিনাইদহ।

 

(৮) রেন্ট সার্টিফিকেট মামলা নিষ্পত্তির অগ্রগতি পর্যালোচনা (আগস্ট, ২০১৮) :

(ক)  আগস্ট, ২০১৮ মাসে রেন্ট সার্টিফিকেট মামলার তথ্য নিম্নরূপ। 

উপজেলার নাম

মোট মামলার সংখ্যা

দাবীর পরিমাণ (টাকায়)

আলোচ্য মাসে নিষ্পন্ন মামলার সংখ্যা

চলতি মাসে আদায়কৃত টাকার পরিমাণ

পুঞ্জিভূত আদায়ের পরিমাণ

অনিষ্পন্ন মামলার সংখ্যা

অনাদায়ী টাকার পরিমাণ

সদর

-

-

-

-

-

-

-

শৈলকুপা

০৯

১,৭১,৪৭২/-

-

-

-

০৯

১,৭১,৪৭২/-

হরিণাকুন্ডু

১১

৯৯,৩১৫/-

-

-

-

১১

৯৯,৩১৫/-

কালীগঞ্জ

-

-

-

-

২৪,৩৮০/-

-

-

কোটচাঁদপুর

-

-

-

-

-

-

-

মহেশপুর

২৯

১১,১৪,২৭৭/-

-

-

-

২৯

১১,১৪,২৭৭/-

মোট

৪৯

১৩,৮৫,০৬৪/-

-

-

২৪,৩৮০/-

৪৯

১৩,৮৫,০৬৪/-

রেন্ট সার্টিফিকেট মামলা নিষ্পত্তির বিষয়ে সভায় আলোচনা করা হয়। শৈলকুপা, হরিণাকুন্ডু ও মহেশপুর উপজেলায় আলোচ্য মাসে কোন রেন্ট সার্টিফিকেট মামলা নিষ্পত্তি না হওয়ায় অসন্তোষ প্রকাশ করা হয়।

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

ক) ভূমি উন্নয়ন করের বকেয়া দাবী রাখা যাবে না। বকেয়া দাবী থাকলে নিয়মানুযায়ী রেন্ট সার্টিফিকেট মামলা দায়ের করতে হবে।

খ) মামলা নিষ্পত্তির হার বৃদ্ধি করতে হবে।

গ) সঠিকভাবে নোটিশ জারী করতে হবে।

ঘ) রেন্ট সার্টিফিকেট মামলার সংখ্যা এবং দাবীর পরিমাণ যাচাই প্রতিবেদন প্রেরণ করতে হবে।

সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ

 

(খ) অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আদালতে চলমান মামলার অগ্রগতি পর্যালোচনা (আগস্ট, ২০১৮) :

ক্রমিক নং

মোট মামলার সংখ্যা

  আগস্ট, ২০১৮ মাসে নিষ্পত্তির সংখ্যা

অনিষ্পন্ন মামলার সংখ্যা

মন্তব্য

১৮

-

১৮

-

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আদালতে অনিষ্পন্ন মামলাসমূহ দ্রুত নিষ্পত্তিসহ মানসম্মত রায়/আদেশ প্রদানের উপর গুরুত্বারোপ করা হয়। আগস্ট/২০১৮ মাসে কোন মামলা নিষ্পত্তি হয়নি।

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

মামলার রায়/আদেশ সঠিক এবং পূর্ণাঙ্গভাবে লিখে অনিষ্পন্ন মামলাগুলি দ্রুত নিষ্পত্তি করতে হবে।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব), ঝিনাইদহ।

 

(গ) উপজেলাভিত্তিক দেওয়ানী মামলা/সরকারি কৌঁসুলি ও ভিপি কৌঁসুলিগণের কর্মতৎপরতা পর্যালোচনা (আগস্ট, ২০১৮) :

উপজেলার নাম

সরকারি সম্পত্তির বিবরণ

পূর্ব মাস হতে আগত

আলোচ্য মাসে দায়ের

মোট মামলা

আলোচ্য মাসে নিষ্পত্তি

পেন্ডিং মামলা

মন্তব্য

সরকারের পক্ষে

সরকারের বিপক্ষে

ঝিনাইদহ

খাস

৩০৪

০৫

৩০৯

০৫

-

৩০৪

 

 

 

 

শৈলকুপা

খাস

২৯৩

-

২৯৩

০১

-

২৯২

হরিণাকুন্ডু

খাস

১১৯

-

১১৯

০১

-

১১৮

কালীগঞ্জ

খাস

১৪৯

০৪

১৫৩

০১

-

১৫২

চলমান পৃষ্ঠা- ০৯

-০৯-

 

কোটচাঁদপুর

খাস

১১১

-

১১১

-

-

১১১

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

মহেশপুর

খাস

২৮৮

০৫

২৯৩

০২

-

২৯১

যুগ্ম জেলা জজ

খাস

৯৩

-

৯৩

-

-

৯৩

ল্যাঃসাঃট্রাঃ

খাস

৩৪৪

১০

৩৫৪

-

-

৩৫৪

ভিপি ট্রাঃ

অর্পিত

১২৪০

-

১২৪০

০৩

-

১২৩৭

সর্বমোট

 

২৯৪১

২৪

২৯৬৫

১৩

-

২৯৫২

 

জেলা ও দায়রা জজ

খাস

১৩৬

-

১৩৬

-

-

১৩৬

 

মোট

 

১৩৬

-

১৩৬

-

-

১৩৬

 

পেন্ডিং এসএফ/জবাবের তথ্য

ক্রমিক নং

উপজেলার নাম

পেন্ডিং এসএফ-এর সং খ্যা

০১

সদর (এসএফ)

১৮ টি

০২

শৈলকুপা (এসএফ)

১৭ টি

০৩

হরিণাকুন্ডু (এসএফ)

০৮ টি

০৪

কালীগঞ্জ (এসএফ)

০৪ টি

০৫

কোটচাঁদপুর (এসএফ)

-

০৬

মহেশপুর (এসএফ)

১৫ টি

০৭

সরকারী কৌঁসুলির (জবাব)

৫৯৮ টি

 

মোট

৬৬০ টি

 

সরকারি স্বার্থ সংশ্লিষ্ট মামলায় সরকারি স্বার্থ রক্ষা এবং তথ্য সমৃদ্ধ বস্তুনিষ্ঠ এসএফ প্রস্তুত সংক্রান্ত আলোচনা করা হয়। এসএফ এর উপর ভিত্তি করেই মামলার জবাব লেখা হয়। দুর্বল এসএফ এর কারণে জবাব দুর্বল হলে বিজ্ঞ আদালতে সরকার পক্ষে শক্ত অবস্থান নেয়া কঠিন হয়। ফলে সরকারি স্বার্থ ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। আরএম শাখা হতে মামলার তদবির করা হচ্ছে এবং এসএফ প্রেরণ করা হচ্ছে।

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

ক) সরকারি স্বার্থ সংশ্লিষ্ট মামলায় সরকারি স্বার্থ

    রক্ষার্থে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

খ) তথ্য সমৃদ্ধ এবং বস্তুনিষ্ঠ এসএফ দ্রুত প্রেরণ করতে হবে।

গ) এস.এফ-এর বর্ণনা অনুযায়ী প্রমাণক সংযুক্ত করতে হবে।

রেভিনিউ ডেপুটি কালেক্টর, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, আরএম শাখা, সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ,  বিজ্ঞ সরকারি কৌঁসুলি, ঝিনাইদহ।

সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ

 

(৯) ভূমি রেকর্ড সংক্রান্ত :

 

আরএস জরিপে সরকারি স্বার্থ রক্ষার্থে আলোচনা করা হয়। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) বলেন শীঘ্রই ঝিনাইদহ জেলায় ডিজিটাল জরিপের কার্যক্রম শুরু হবে। ডিজিটাল জরিপে সরকারি স্বার্থ রক্ষার জন্য এখন হতেই মৌজাওয়ারি সরকারি সম্পত্তির সঠিক হিসাব নিরূপণের কাজ শুরু করার জন্য সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়। ডিজিটাল জরিপের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হচ্ছে।

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

ক) ডিজিটাল জরিপে সরকারি স্বার্থ রক্ষার্থে মৌজাওয়ারি সরকারি সম্পত্তির

    সঠিক হিসাব নিরূপণপূর্বক প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে।

খ) আরএস জরিপে সরকারি স্বার্থ রক্ষার্থে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে  হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ

 

(১০) বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (এপিএ) বাস্তবায়ন :

২০১৭-১৮ অর্থ বছরের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (এপিএ) বাস্তবায়নসহ ত্রৈমাসিক/ষান্মাসিক/বার্ষিক প্রতিবেদন প্রস্তুত ও প্রেরণ সংক্রান্ত আলোচনা করা হয়। লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের প্রচষ্টা অব্যাহত রয়েছে এবং নিয়মিত প্রতিবেদন প্রেরণ করা হচ্ছে। কর্মসম্পাদন চুক্তির  বাস্তবায়ন তদারকি করা হচ্ছে।

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

ক) বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (এপিএ) বাস্তবায়নসহ নিয়মিত প্রতিবেদন প্রেরণ

     করতে হবে।

সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ

খ) বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রাসমূহ অর্জনের জন্য জোর

    পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) ও সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ

গ) নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে ত্রৈমাসিক, অর্ধবার্ষিক ও বার্ষিক মূল্যায়ন

   প্রতিবেদন ভূমি সংস্কার বোর্ডে প্রেরণ নিশ্চিত করতে হবে।

জেলা প্রশাসক ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব)

ঘ) অধস্তন অফিসসমূহের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির বাস্তবায়ন তদারকি

    করতে হবে।

জেলা প্রশাসক ও অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব)

চলমান পৃষ্ঠা- ১০

-১০-

 

(১২) বিবিধ :

 

(ক) সরকারি সম্পত্তির আর.এস রেকর্ড সংক্রান্ত :

 

যে সকল মৌজার আরএস রেকর্ড চূড়ান্ত হয়ে গেজেট প্রকাশিত হয়েছে; সে সকল মৌজার সরকারি সম্পত্তি সি এস এবং এস এ রেকর্ডের সাথে তুলনা করে সরকারি সম্পত্তি অন্য কোথাও রেকর্ডভূক্ত হলে সরকারের নামে রেকর্ডভূক্ত করার প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ করতে হবে।

 

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

ক) চূড়ান্ত রেকর্ড প্রকাশিত মৌজার সরকারি সম্পত্তি অন্য নামে রেকর্ড হলে তা সরকারের

     নামে রেকর্ডভূক্ত করার ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ

খ) রেকর্ড প্রকাশিত হয়নি এরূপ মৌজার রেকর্ডের প্রিন্ট কপি পাওয়ার পরই গেজেট হওয়ার

   আগে রেকর্ড সংশোধনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

সহকারী কমিশনার (ভূমি)গণ

 

 

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)




Share with :

Facebook Twitter